মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

► শিক্ষা ঋন নেয়ার সহজ উপায়।

শিক্ষা ঋণ

কর্মজীবনকে সমৃদ্ধ করে তোলার জন্য গতানুগতিক ডিগ্রির পাশাপাশি উন্নত ওউচ্চপর্যায়ে বিভিন্ন ডিগ্রি অর্জন করতে প্রচুর অর্থের প্রয়োজন৷ বেসরকারিকয়েকটি ব্যাংক সহজ শর্তে ছাত্রদের জন্য দীর্ঘমেয়াদি ঋণ দিয়ে থাকে৷আগ্রহী শিক্ষার্থীদের সুযোগ করে দিতে যে ঋণ দেওয়া হয় তাই স্টুডেন্ট লোননামে পরিচিত৷ আপনাদের সুবিধার্থে কিছু ঋণদানকারীপ্রতিষ্ঠানের ঋণদানেরশর্তসমূহ, সুদের হার, ঋণ নেয়ার জন্য যোগাযোগ করার ঠিকানা বিস্তারিত দেয়াহল ৷

ঋণ দিচ্ছে এমন কয়েকটি প্রতিষ্ঠান :
দেশের অর্থনৈতিক মন্দা এবং মুদ্রাস্ফীতির কারণে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ঋণদানেরখাতসমূহকে সন্কুচিত করে দিলেও বিশেষ সেবা প্রদান কর্মসূচির আওতায় দেশেরবেশ কয়েকটি বেসরকারি ব্যাংক প্রতিষ্ঠান ছাত্রঋণ দিয়ে থাকে৷ এর প্রধানউদ্দেশ্য, উচ্চবিত্তদের পাশাপাশি মধ্যবিত্তরাও যেন উচ্চশিক্ষা গ্রহণেরসুযোগ পায়৷ কিছু কিছু ব্যাংক একে ক্যারিয়ার লোন বলে আবার কিছু ব্যাংক একেসরাসরি স্টুডেন্ট লোন বা শিক্ষা ঋণ নামে অভিহিত করে৷ সাধারণত অভিভাবক অথবাসরাসরি শিক্ষার্থীদেরও এ ধরনের ঋণ দেওয়া হয়৷ তবে এ ক্ষেত্রে অভিভাবকঅথবা শিক্ষার্থীদের ঋণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের কিছু শর্ত মেনে ঋণ নিতেহয়৷



ঋণদানকারী প্রতিষ্ঠানের নাম

• এইচএসবিসি ব্যাংক
• ব্র্যাক ব্যাংক
• প্রাইম ব্যাংক
• ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড
• উত্তরা ব্যাংক
• গ্রামীন ব্যাংক

ঋণ উঠানোর যোগ্যতা
ঋণ পরিশোধে সক্ষম বিবেচিত যে কেউ এই ব্যাংকগুলো থেকে শিক্ষা ক্ষেত্রে ঋণনিতে পারে৷ সাধারণত সরকারি কিংবা বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরতকর্মকর্তা-কর্মচারীকে যাদের বেতন ১২-১৮ হাজার টাকা তারাই এ লোনের সুবিধাপেয়ে থাকেন৷ ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে আয়ের প্রমাণ সাপেক্ষে মাসিক আয়অবশ্যই ৫০ হাজার টাকা হতে হবে৷ ২৫ বছর থেকে ৬০ বছর বয়সের যে কেউ যোগ্যতাঅনুসারে ঋণ নিতে পারবেন৷

ঋণ নেওয়ার পদ্ধতি
অভিভাবকরা যদি তাদের সন্তানদের জন্য শিক্ষা নিতে আগ্রহী হন, তবে যেসবব্যাংক ঋণ দিয়ে থাকে সেগুলোর যেকোনো শাখায় গিয়ে মার্কেটিং/ক্রেডিটবিভাগে যোগাযোগ করতে হবে৷ সেখানে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাই আপনাকেবিস্তারিত জানিয়ে দেবেন৷ তবে এ ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় তথ্যাদি ও ডকুমেন্টযেমন-

আয়ের প্রমাণপত্র, কলেজ/বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির সনদ ও ছাত্রছাত্রীরসম্মতিপত্র জমা দিতে হবে৷ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ আপনার কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করেনূন্যতম সময়ে আপনার কাw•ক্ষত ঋণ দিয়ে দেবে৷
এইচএসবিসি ছাত্র ঋণ



© http://www.hsbc.com.bd

এইচএসবিসি থেকে ছাত্রঋণ নেয়ার শর্ত :
• কোনো প্রকার ব্যক্তিগত গ্যারান্টি বা নগদ জামানত দিতে হয় না
• ঋণ নিতে হলে অবশ্যই পরিবারের কোন সদস্যকে আয় করতে হবে এবং তার মাসিক আয় ১৮ হাজার থেকে ২২ হাজার হতে হবে ৷
• এইচএসবিসি ৫০ হাজার টাকা থেকে ৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা অথবা ঋণ গ্রহণকারীর মাসিক আয়ের ৪ গুণ পরিমাণ ঢাকা ঋণ দিয়ে থাকে৷
• ঋণের সুদের হার ১৮%
• তুলনামূলক কম সুদে এই ঋণ পরিশোধ করতে হয় ১২, ২৪, ৩৬, ৪৮ ও ৬০ মাসের মধ্যে৷
• স্টুডেন্ট ফাইল খোলার সুবিধা আছে৷
• যদি কোনো আউটপুট অথবা সিইপিএস গ্রাহক ছাত্রঋণ নিতে চায়, তবে তাকে ৬ ও ১০গুণ হিসেবেও ঋণ দেওয়া হয়৷ তবে তা সর্বোচ্চ ৭ লাখ ৫০ হাজার টাকার বেশিনয়৷
ঋণ নেয়ার জন্য যোগাযোগ করুন :

মার্কেটিং এন্ড পাবলিক রিলেসান্স ম্যানেজার
এইচএসবিসি ঢাকা মেইন অফিস
১/১- বি, সোনারগঁাও রোড
ঢাকা- ১২০৫, বাংলাদেশ
ফোন- ০১১৮৮৫৬২৬ (ঋণ শাখ
০১১৮৮৪৭২২ (এইচএসবিসি অফিস)
তথ্যসূত্র; http://www.hsbc.com.bd
ব্র্যাক ব্যাংক শিক্ষা ঋণ

© http://www.bracbank.com


ব্র্যাক ব্যাংকে সরাসরি এডুকেশন লোন স্কিম না থাকলেও পার্সোনাল লোন স্কিমের মাধ্যমে লোন দেয়৷
ব্র্যাক ব্যাংক শিক্ষাঋণের শর্তসমূহ
• দেশের বাইরে পড়াশুনার জন্য ঋণ প্রদান করে থাকে৷
• কোন জামানত ছাড়া১০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ গ্রহণ করা যায়৷
• সবোর্চ্চ ঋণ দেয়ার পরিমান ৩০ লাখ টাকা
• ঋণ পরিশোধ করার জন্য সময় পাওয়া যায় ১-৪ বছর৷
• ঋণ পরিশোধের হার ১৫%
• ব্যাংক একাউন্ট থাকতে হবে ৷
• বিদেশে যাওয়ার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিতে হবে ৷

ঋণ নেয়ার জন্য যোগাযোগ করুন:
বাড়ি # ১,রোড # ১, গুলশান এভিনিউ
গুলশান -১, ঢাকা -১২১২, বাংলাদেশ
http://www.bracbank.com
ঢাকা:গুলশান-৮৮২৪০৫৩, বনানী-৮৮৫৮৭ঌ৫, মতিঝিল-ঌ৫৫০৩০৭, নওয়াপাড়া -৭১২৫০০০, মগবাজার-ঌ৩৫৫৫৩৮-ঌ, কেরানীগঞ্জ-৭৭৭২৬৬১-২, ধানমন্ডি-৮১৫০১ঌ৮, সাভার-৭৭০২৫২৩-৪, সাতমসজিদ রোড-৮১২৬৬৫৬
চট্টগ্রাম :
আগ্রাবাদ- ০৩১-৮১২০৮ঌ
সিলেট :
সিলেট- ০৮২১-৭২০১৮৮, জিন্দাবাজার-০৮২১-৮১৪৪৪১, বিয়ানীবাজার-০৮২২৩-৮৭৭৪৬
তথ্যসূত্র ঃhttp://www.bracbank.com
প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাঋণ
প্রাইম ব্যাংকের এডুকেশন লোন নামে একটি লোন স্কিম চালু আছে৷

প্রাইম ব্যাংক থেকে ঋণ নেয়ার শর্তসমূহ :
• শিক্ষা ঋণ ছাত্র বা ছাত্রীর অভিভাবককে দেয়া হবে ৷ অভিভাবকের আয় অনুযায়ী ঋণের পরিমাণ নিধাᐂরন করা হয় ৷
• এ লোন স্কিম থেকে আগ্রহীরা ১-৩ লাখ টাকা পর্যন্ত লোন নিতে পারেন৷
• পরিশোধের সর্বোচ্চ সময়সীমা ২ বছর৷
• এ জন্য প্রাইম ব্যাংকে শতকরা ১৫ শতাংশ হারে সুদ প্রদান করতে হয়৷
• শিক্ষাথী©কে তার প্রয়োজনীয় সব কাগজপত্র জমা দিতে হবে ৷ এবং খরচেরপরিমাণের ভিত্তিতে
• লোন দেয়া হয়ে থাকে ৷
ঋণ নেয়ার জন্য যোগাযোগ করুন:
আদমজি কোর্ট,এনেক্স ভবন-২,১১ঌ-১২০
মতিঝিল সি/এ, ঢাকা -১০০০
বাংলাদেশ
ফোন - ঌ৫৬৭২৬৫,ঌ৫৬৭০৭৪৭-৮ ( পিএবিএক্স)
ফ্যাক্স ৮৮০-২-ঌ৫৬৭২৩০,ঌ৫৬০ঌ৭৭,৮৮০-২-ঌ৫৬৬২১৫
টেলেক্স - 642459 PRIME BJ,671543 PBL MJ BJ
ই-মেইল-info@prime-bank.com, primebnk@bangla.net
ওয়েব সাইট -http://www.prime-bank.com
তথ্যসূত্র :http://www.prime-bank.com
ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড শিক্ষাঋণ
ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড থেকে শিক্ষাঋণের শর্তসমূহ:
ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ ক্রয়ের ক্ষেত্রে এইচডিএসনামের স্কিমের আওতায় পণ্যসামগ্রীর মূল্যের এক-চতুর্থাংশ ডাউন পেমেন্টনিয়ে লোন দেয়৷
এ জন্য অবশ্য প্রতি বছর ১২.৫০ শতাংশ এবং সুপারভিশন চার্জহিসেবে ২ শতাংশ হারে শোধ করতে হয়৷
এখানে মাসিক কিস্তিতে সর্বোচ্চ ২ বছরের মধ্যে পণ্যের মূল্য পরিশোধ করেত হয়৷
ঋণ নেয়ার জন্য যোগাযোগ করুন:
ইসলামি ব্যাংক টাওয়ার
৪০, দিলকুশা C/A
ঢাকা-১০০০,বাংলাদেশ
ফোন-ঌ৫৬০০ঌঌ, ঌ৫৬৭১৬১,ঌ৫৬৭১৬২, ঌ৫৬ঌ৪১৭
টেলিক্স-642525 IBANK BJ 632403 IBANK BJ 671620 IBANK BJ
ফ্যাক্স-৮৮০-২-ঌ৫৬৪৫৩২, ৮৮০-২-ঌ৫৬৮৬৩৪
ই-মেইল-info@islamibankbd.com
ওয়েবসাইট - http//www.islamibankbd.com
তথ্যসূত্র :http://www.islamibankbd.com
উত্তরা ব্যাংক
বেতনভুক্ত চাকুরীজীবিদের ব্যক্তিগত ঋণ প্রকল্প
বাংলাদেশের চাকুরীজীবিরা সীমিত আয়ের জনগোষ্ঠী৷ অনেকেই তাদের নিজস্ব সঞ্চয়বা সীমিত আয়থেকে নিজের বা পোষ্যদের বিবাহ, চিকিত্‌সা, সন্তানদের শিক্ষা ওঅন্যান্য জরুরি ব্যয় বহনে অসমর্থ৷ এই জনগোষ্ঠীকে আর্থিক সহায়তা দানেরউদ্দেশ্যে উত্তরা ব্যাংক লিমিটেড বেতনভুক্ত চাকুরীজীবিদের ব্যক্তিগত ঋণপ্রকল্প (Personal Loan Scheme for Salaried Officers) চালু করেছে৷



(ক) প্রকল্পের উদ্দেশ্য:
সীমিত আয়ের বেতনভুক্ত চাকুরীজীবিদের সুস্বস্থ্য, সন্তানদের শিক্ষা ও সুখী জীবন উন্নয়নই এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য৷

(খ) যে সব ক্ষেত্রে এই প্রকল্পের আওতায় ঋণ দেওয়া যাবে:
চাকুরীজীবির নিজের বা পোষ্যের বিয়ের জরুরি ব্যয়৷
চাকুরীজীবির জরুরি সার্জিক্যাল অপারেশন/চিকিত্‌সা ব্যয়৷
সন্তানদের জরুরি শিক্ষাসংক্রান্ত ব্যয় যেমন-ভর্তি, বই কেনা, পরীক্ষার ফিস ইত্যাদি৷
ব্যাংকের নিকট গ্রহণযোগ্য অন্যান্য জরুরি প্রয়োজন৷

(গ) যারা এই প্রকল্পের আওতায় ঋণ পেতে পারেন:
২০ (বিশ) থেকে ৫৫ (পঞ্চান্ন) বছর বয়স সীমার মধ্যে নিম্নে বর্ণিত সার্ভিসগ্রুপের কর্মরত স্থায়ী চাকুরীজীবিগণ এই প্রকল্পের আওতায় ঋণ সুবিধাগ্রহণের জন্য আবেদন করতে পারেন:

১) সরকারি৷
২) আধা-সরকারি৷
৩) স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান৷
৪) যৌথসংস্থা৷
৫) ব্যাংক (উত্তরা ব্যাংক লিঃ এর চাকুরীজীবিগণ ব্যতীত)৷
৬) বীমা কোম্পানী
৭) সশস্ত্রবাহিনী, বি,ডি,আর, পুলিশ এবং আনসার বিভাগ৷
৮) বিশ্ববিদ্যালয়, মহাবিদ্যালয় ও সরকারি স্কুল শিক্ষক৷
ঌ) মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানী৷
১০) ব্যাংকের নিকট গ্রহণযোগ্য অন্যান্য খ্যাতিসম্পন্ন প্রতিষ্ঠান৷
(ঘ) ঋণের পরিমাণ:
সর্বচ্চো টাঃ ১.০০ লক্ষ৷
(ঙ) ঋণ পরিশোধের মেয়াদ:
ক্ষেত্র বিশেষে নির্ধারন যোগ্য কিন্তু ৩ (তিন) বছরের অধিক নয়৷

(চ) সুদ ও অন্যান্য চার্জ:
১) সুদ: ১৬.৫% চক্রবৃদ্ধি হারে বকেয়া কিস্তির উপর কিন্তু ১০ টাকার কম নয়৷
২) দন্ড সুদ: মাসিক ২% হারে বকেয়া কিস্তির উপর কিন্তু ১০ টাকার কম নয়৷
৩) সার্ভিস চার্জ: ঋণের পরিমাণ ৫০,০০০.০০ টাকা পর্যন্ত টাঃ ২৫০.০০ এবং৫০,০০০.০০ টাকার উর্ধ্বে টাঃ ৫০০.০০ (ঋণ প্রদানের পূর্বে এককালীন দেয়)৷
৪) রিন্ক ফান্ডঃ ঋণের অংকের ২% কিন্তু সর্বনিম্ন টাঃ ৩০০.০০ (অফেরতযোগ্য) ঋণ গ্রহণের পূর্বে এককালীন দেয়৷
৫) আবেদন পত্র ও প্রসপেকটাস: মূল্য টাঃ ২৫.০০ (অফেরতযোগ্য)৷
(ছ) ঋণ পরিশোধের পদ্ধতি:
মূল ঋণ ও ইহার উপর অর্পিত সুদ সমান মাসিক কিস্তিতে পরিশোধ করতে হবে৷ ঋণগ্রহণের পরবর্তী মাস থেকে প্রতি মাসের ৭ তারিখের মধ্যে ঋণ গ্রহিতার মাসিকবেতন থেকে কিস্তি আদায় করা হবে৷ ঋণ গ্রহণের পূর্বে গ্রাহক প্রতিটি কিস্তিরজন্য ব্যাংকের অনুকূলে অগ্রিম চেক জমা দিবে যা নির্দিষ্ট তারিখে সংশ্লিষ্টব্যাংকে পরিশোধের জন্য পেশ করা হবে৷ ঋণ গ্রহণের পূর্বেই ঋণ পরিশোধের সময় ওকিস্তির পরিমাণ নির্ধারণ করা হবে৷

(জ) জামানত ও চার্জ ডকুমেন্টস:
১) ঋণ গ্রহিতার বেতন, প্রভিডেন্ট ফান্ড, গ্রেচুয়েটি ইত্যাদি লিয়েন (Lien) পত্র৷
২) ১৫০.০০ টাকার নন-জুডিসিয়াল ষ্টাম্প এর উপর ব্যাংকের অনুমোদিতগ্যারান্টি বন্ড যাহা ঋণ গ্রহিতার উপরের পদমর্যাদা সম্পন্ন অফিসার, যে কোনোব্যাংকের প্রিন্সিপাল অফিসার এবং তার উপরের পদমর্যাদা সম্পন্ন কর্মকর্তাকর্তৃক প্রদেয়৷
৩) বেতন প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের নিশ্চয়তা পত্র৷
৪) ব্যাংকের অনুমোদিত ফরম এ মাসিক কিস্তি পরিশোধের অঙ্গীকার নামা প্রদান৷
৫) গ্রাহক কর্তৃক ঋণ গ্রহণের পূর্বে প্রতিটি কিস্তির জন্য পৃথকভাবে ব্যাংকের অনুকূলে অগ্রিম চেক প্রদান৷
৬) ব্যাংকের নিয়মানুযায়ী অন্যান্য চার্জ ডকুমেন্টস৷
ঝ) ঋণ আবেদন পদ্ধতি:
১) ব্যাংকের নির্ধারিত ফরম এর সকল কলাম পূরন ও স্বাক্ষরযুক্ত আবেদনপত্র৷
২) প্রথম শ্রেণীর গেজেটেড অফিসার অথবা কোনো ব্যাংকের প্রিন্সিপাল অফিসার বাতদুর্ধ পদমর্যাদার কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত সদ্য তোলা দুই কপি পাসপোর্টসাইজ ফটো৷

(ঞ)অন্যান্য:
যদি গ্রাহক স্বয়ং অথবা তাহার জামিনদার (Guarantor) ঠিকানা অথবা পেশাপরিবর্তন করেন তবে তত্‌ক্ষনাত্‌ পরিবর্তিত ঠিকানা এবং পেশা ব্যাংক কেলিখিতভাবে জানাতে হবে৷

যে সকল শাখায় এই প্রকল্প চালু আছে
• স্থানীয় কার্যালয়, ঢাকা৷
• কর্পোরেট শাখা, ঢাকা৷
• বঙ্গবন্ধু এভিনিউ শাখা, ঢাকা৷
• বাণিজ্য শাখা, ঢাকা৷
• ঢাকা শেরাটন হোটেল শাখা, ঢাকা৷
• দিলকুশা শাখা, ঢাকা৷
• ফকিরাপুল শাখা, ঢাকা৷
• বৈদেশিক বাণিজ্য শাখা, ঢাকা৷
• ফুলবাড়িয়া শাখা, ঢাকা৷
• হাট খোলা শাখা, ঢাকা৷
• হোটেল ঈশাখাঁ ইন্টারন্যাশনাল শাখা, ঢাকাঃ
• যাত্রাবাড়ি শাখা, ঢাকা৷
• মহিলা শাখা, ঢাকা৷
• মালিবাগ শাখা, ঢাকা৷
• মান্ডা শাখা, ঢাকা৷
• মগবাজার শাখা, ঢাকা৷
• নবাবপুর শাখা, ঢাকা৷
• নিউমার্কেট শাখা, ঢাকা৷
• নর্থ শাহজাহানপুর শাখা, ঢাকা৷
• রমনা শাখা, ঢাকা৷
• শান্তিনগর শাখা, ঢাকা৷
• সিদ্ধেসরী শাখা, ঢাকা৷
• আমিন বাজার শাখা, ঢাকা৷
• আওলাদ হোসেন মার্কেট শাখা, ঢাকা৷
• দার-উস-সালাম রোড শাখা, ঢাকা৷
• ইস্টা©ন প্লাজা শাখা, ঢাকা৷
• এলিফেন্ট রোড শাখা, ঢাকা৷
• ই,পি,জেড শাখা, ঢাকা৷
• গ্রীন রোড শাখা, ঢাকা৷
• গুলশান শাখা, ঢাকা৷
• জোয়ার শাহারা শাখা, ঢাকা৷
• কলাবাগান শাখা, ঢাকা৷
• কাওরান বাজার শাখা, ঢাকা৷
• মিরপুর শাখা, ঢাকা৷
• পল্লবী শাখা, ঢাকা৷
• সাত মসজিদ রোড শাখা, ঢাকা৷
• শ্যামলী শাখা, ঢাকা৷
• উত্তরা শাখা, ঢাকা৷
• আজিমপুর শাখা, ঢাকা৷
• বাবুবাজার শাখা, ঢাকা৷
• বাংলাবাজার শাখা, ঢাকা৷
• চকবাজার শাখা, ঢাকা৷
• ধোলাইখাল শাখা, ঢাকা৷
• ইংলিশ রোড শাখা, ঢাকা৷
• ফরাশগঞ্জ শাখা, ঢাকা৷
• ইমামগঞ্জ শাখা, ঢাকা৷
• ইসলামপুর শাখা, ঢাকা৷
• জনসন রোড শাখা, ঢাকা৷
• লালবাগ শাখা, ঢাকা৷
• লয়ারষ্ট্রিট শাখা, ঢাকা৷
• মিডফোর্ড রোড শাখা, ঢাকা৷
• মৌলভী বাজার শাখা, ঢাকা৷
• নয়াবাজার শাখা, ঢাকা৷
• পিলখানা শাখা, ঢাকা৷
• পোস্তা শাখা, ঢাকা৷
• টিপুসুলতান রোড শাখা, ঢাকা৷
• ডি,আই,টি শাখা, নারায়নগঞ্জ৷
• নারায়নগঞ্জ শাখা, নারায়নগঞ্জ৷
• মুন্সিগঞ্জ শাখা, মুন্সিগঞ্জ৷
• নরসিংদী শাখা, নরসিংদী৷
• নিতাইগঞ্জ শাখা, নারায়নগঞ্জ৷
• টানবাজার শাখা, নারায়নগঞ্জ৷
• মানিকগঞ্জ শাখা, মানিকগঞ্জ৷
• জামালপুর শাখা, জামালপুর৷
• কিশোরগঞ্জ শাখা, কিশোরগঞ্জ৷
• ময়মনসিংহ শাখা, ময়মনসিংহ৷
• নেত্রকোনা শাখা, নেত্রকোনা৷
• শেরপুর শাখা, শেরপুর৷
• টাংগাইল শাখা, টাংগাইল৷
• অগ্রাবাদ শাখা, চট্টগ্রাম৷
• জুঁবলী রোড শাখা, চট্টগ্রাম৷
• খাতুনগঞ্জ শাখা, চট্টগ্রাম৷
• লালদিঘী শাখা, চট্টগ্রাম৷
• লালখান বাজার শাখা, চট্টগ্রাম৷
• নাছিরাবাদ শাখা, চট্টগ্রাম৷
• পতেঙ্গা শাখা, চট্টগ্রাম৷
• রাঙামাটি শাখা, রাঙামাটি৷
• সদরঘাট শাখা, চট্টগ্রাম৷
• শেখ মুজিব রোড শাখা, চট্টগ্রাম৷
• রিয়াজউদ্দিন বাজার শাখা, চট্টগ্রাম৷
• ব্রাহ্মণবাড়িয়া শাখা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া৷
• চাঁদপুর শাখা, চাঁদপুর৷
• কুমিল্লা শাখা, কুমিল্লা৷
• ফেনী শাখা, ফেনী৷
• মাইজদী কোর্ট শাখা, নোয়াখালী৷
• মোগলটুলী শাখা, কুমিল্লা৷
• চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখা৷
• নাটোর শাখা, নাটোর৷
• পাবনা শাখা, পাবনা৷
• রাজশাহী ষ্টেডিয়াম শাখা, রাজশাহী৷
• রানী বাজার শাখা, রাজশাহী৷
• সাহেব বাজার শাখা, রাজশাহী৷
• বগুড়া শাখা, বগুড়া৷
• দিনাজপুর শাখা, দিনাজপুর৷
• গাইবান্ধা শাখা, গাইবান্ধা৷
• জয়পুরহাট শাখা, জয়পুরহাট৷
• কুড়িগ্রাম শাখা, কুড়িগ্রাম৷
• লালমনির হাট শাখা, লালমনির হাট৷
• নওগাঁ শাখা, নওগাঁ৷
• নীলফামারী শাখা, নীলফামারী৷
• রংপুর শাখা, রংপুর৷
• সিরাজগঞ্জ শাখা, সিরাজগঞ্জ৷
• পৌরপার্ক মার্কেট শাখা, রংপুর৷
• ষ্টেশন রোড শাখা, দিনাজপুর৷
• ঠাকুরগাও শাখা, ঠাকুরগাও৷
• বাগেরহাট শাখা, বাগেরহাট৷
• চুয়াডাঙ্গা শাখা, চুয়াডাঙ্গা৷
• যশোর শাখা, যশোর৷
• ঝিনাইদাহ শাখা, ঝিনাইদাহ৷
• কে,ডি,এ, শাখা, খুলনা৷
• কুষ্টিয়া শাখা, কুষ্টিয়া৷
• লোয়ার যশোর রোড শাখা, খুলনা৷
• মাগুরা শাখা, মাগুরা৷
• মেহেরপুর শাখা, মেহেরপুর৷
• নরাইল শাখা, নরাইল৷
• সাতক্ষীরা শাখা, সাতক্ষীরা৷
• স্যার ইকবাল রোড শাখা, খুলনা৷
• বরিশাল শাখা, বরিশাল৷
• ভোলাশাখা, ভোলা৷
• চকবাজার শাখা, বরিশাল৷
• বরগুনা শাখা, বরগুনা৷
• ফরিদপুর শাখা, ফরিদপুর৷
• গোপালগঞ্জ শাখা, গোপালগঞ্জ৷
• ঝালকাঠি শাখা, জালকাঠি৷
• মাদারীপুর শাখা, মাদারীপুর৷
• পটুয়াখালী শাখা, পটুয়াখালী৷
• পিরোজপুর শাখা, পিরোজপুর৷
• রাজবাড়ী শাখা, রাজবাড়ী৷
• শরিয়তপুর শাখা, শরিয়তপুর৷
• আম্বরখানা শাখা, সিলেট৷
• হবিগঞ্জ শাখা, হবিগঞ্জ৷
• লালদিঘীর পাড় শাখা, সিলেট৷
• মৌলভীবাজার শাখা, মৌলভী বাজার৷
• সুনাবগঞ্জ শাখা, সুনামগঞ্জ৷
• সিলেট শাখা, সিলেট৷
গ্রামীন ব্যাংক শিক্ষাঋণ
গ্রামীন ব্যাংকের উচ্চ শিক্ষা ঋণ দিয়ে থাকে ৷ গ্রামীন ব্যাংক ১ঌঌ৭ সাল থেকে এ ধরনের ঋণ দিয়ে আসছে ৷
গ্রামীন ব্যাংক থেকে ঋন নেয়ার শর্তসমূহ :

• ব্যাংকের সদস্যদের ছেলেমেয়েরাএ ধরনের ঋণ পেয়ে থাকে ৷
• ৪ থেকে ৫ বছর মেয়াদের এই ঋণ ৩ মাস পর পর কিস্তিতে দেয়া হয় ৷
• ঋণ নেয়ার সময় শিক্ষার্থীর লেখাপড়ার প্রোগ্রেস দেখা হয় ৷
• একই পরিবারের অনেক সদস্য এক সাথে ঋণ নিতে পারে ৷
• লেখাপড়া শেষ হলে চাকরি হওয়ার পর মাত্র ৫ টাকা সার্ভিস চার্জ নিয়ে ঋনের টাকা কিস্তিতে ফেরত নেয়া হয় ৷
• কোন সুদ দিতে হয় না ৷
ঋণ নেয়ার জন্য যোগাযোগ করুন:বাংলাদেশের গ্রামীন ব্যাংকের যেকোন শাখায়